সিনে সমাচার

অ্যাভেঞ্জার্স জ্বরে কাঁপছে দেশ 

  সিনেঘর ওয়েব দল

২৬ এপ্রিল, ২০১৯

আজ মুক্তি পেয়েছে মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সের সিনেমা অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম। ছবিটি নিয়ে বিশ্বব্যাপী তুমুল হইচই পড়ে গেছে। অ্যাভেঞ্জার্স জ্বরে কাঁপছে বিশ্ব। সে জ্বর এসে লেগেছে বাংলাদেশেও। এরই মধ্যে দেশের তিনটি সিনেপ্লেক্সের অগ্রিম দুই থেকে তিন দিনের টিকিট শেষ। অ্যাভেঞ্জার্স ভক্তরা টিকিট কিনতে লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন ভোর রাতেও।

বাংলাদেশের কয়েকটি শীর্ষ গণমাধ্যম এনিয়ে খবর করেছে। সেখানে উঠে এসেছে অ্যাভেঞ্জার্স নিয়ে বাঙালি দর্শকদের উন্মাদনা। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হুড়োহুড়ি করে টিকিট কিনতে যাওয়ার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। দেখা গেছে সকাল থেকেই টিকিট কাউন্টারের সামনে দীর্ঘ লাইন। দেশের শীর্ষ পত্রিকা প্রথম আলো লিখেছে, ‘‘অ্যাভেঞ্জার্স এন্ডগেম’–এর অগ্রিম টিকিট নিয়ে কাড়াকাড়ি। গতকাল বুধবার দিবাগত রাত দুইটা থেকে রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি শপিং মলের বাইরে ভক্তরা জড়ো হতে থাকে। আজ বৃহস্পতিবার ভোর পাঁচটার মধ্যে টিকিটের জন্য লাইন বসুন্ধরা সিটি শপিং মলের বাইরের রাস্তায় উঠে যায়। অন্যদিকে, একই অবস্থা ছিল স্টার সিনেপ্লেক্স সীমান্ত সম্ভারে। সেখানে সকাল ছয়টা থেকে লাইন ধরেন মার্ভেল–ভক্তরা। একসময় সীমান্ত স্কয়ার থেকে শুরু হয়ে সেই লাইন চলে যায় ধানমন্ডি ২-এর গলির ভেতর পর্যন্ত।

মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সের ‘অ্যাভেঞ্জার্স’ ফ্রাঞ্চাইজির শেষ ছবি ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, চীন, ভারতসহ বিভিন্ন দেশে ‘এন্ডগেম’ অগ্রিম টিকিট বিক্রির দিক থেকে পুরোনো সব রেকর্ড ভেঙেছে। ঢাকায় আজ সকাল থেকে শুরু হয় এ ছবির অগ্রিম টিকিট বিক্রি।

সকাল সাড়ে নয়টায় অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরুর কথা থাকলেও দর্শকের চাপে সকাল আটটা থেকে স্টার সিনেপ্লেক্সকে তাদের কার্যক্রম শুরু করতে হয়। হাজার হাজার দর্শক গভীর রাত থেকে শপিং মলের বাইরে টিকিট কেনার জন্য অবস্থান নেন। দর্শকের চাপে সকাল সাতটায় বসুন্ধরা সিটি শপিং মল কর্তৃপক্ষকে খুলে দিতে হয় মূল ফটক। আর তখনই রীতিমতো যুদ্ধ শুরু হয়ে যায়। হুড়োহুড়ি করে হেঁটে সিঁড়ি বেয়ে আটতলায় টিকিট কাউন্টারে উঠে যায় দর্শক। সেই সময় কথা হয় ফার্মগেট থেকে ভোর পাঁচটায় টিকিটের জন্য আসা রিয়াদ মোর্শেদের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘আগে থেকেই জানতাম এমন একটা কিছু হবে। তাই আমরা প্রস্তুত। টিকিট না নিয়ে বাড়ি যাব না। যত সময়ই লাগুক না কেন।’ শুধু রিয়াদ নন, আশপাশে থাকা বাকি ‘অ্যাভেঞ্জার্স’-ভক্তরা সুর মেলান তাঁর সঙ্গে। যে করেই হোক, একটা টিকিট চাই-ই চাই।

বিডি নিউজ টুয়েন্টিফোর লিখেছে, ‘ভোরে শপিং মলের গেট খুলতেই অ্যাভেঞ্জার্স দেখতে ছুটে যাচ্ছে হাজারও তরুণ। সীমান্ত সম্ভারেও ভোর ছটা থেকে চলচ্চিত্রপ্রেমীরাও ছুটে গেছেন টিকিটের সন্ধ্যানে। টিকিট গ্রহীতাদের চাপ সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে সিনেপ্লেক্স কর্মীদের। বৃহস্পতিবার সকাল দশটার মধ্যেই শেষ হয়ে যায়, শুক্র ও শনিবারের ৩৪টি শোয়ের টিকেট।’

এদিকে পাশের দেশ ভারতেও বেশ উন্মাদনা চলছে সিনেমাটি নিয়ে। ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো লিখেছে, ‘এই সিনেমার জন্য এতটাই দর্শকের উন্মাদনা যে, ২৪ ঘণ্টা সিনেমা প্রদর্শনীর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। এমনকি সেখানকার রাত ৩টা ও সাড়ে চারটার টিকিটও বিক্রি শেষ হয়ে গেছে।’






আরও দেখুন

 খুঁজুন