এক কথায় বললে, ২০১৮ সাল ঢাকাই ছবির জন্য ছিল একটি মন্দার বছর। স্থানীয়ভাবে নির্মাণে পিছিয়ে পড়া, অনেক ছবির কাজ অসমাপ্ত রেখে দেয়া, নির্বাচনের কারণে মুক্তি না দেয়া, যৌথ প্রযোজনা কিংবা আমদানির ছবির মুক্তি কমে যাওয়া কিংবা উল্লেখযোগ্য হারে হল বন্ধ হয়ে যাওয়ার মতো অনেক কারণ বলা যেতে পারে। একই সাথে দেবী-এর মতো সাহিত্যনির্ভর ছবির সাফল্য, পোড়ামন ২ কিংবা দহন-এর মতো ছবিতে সিয়াম-পূজা জুটি প্রাপ্তি, বিজলী-এর মতো ছবি দেখতে দর্শকের আগ্রহ আর ছোট পর্দার অনেক অভিনয়শিল্পীর বড় পর্দায় আসা হলের নিয়মিত দর্শকদের জন্য দিতে পারে কিছুটা স্বস্তি। সব মিলিয়ে ২০১৯ সাল একই সাথে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা কিছু ছবির জন্য যেমন দর্শকদের অপেক্ষা করাবে, তেমনি চলচ্চিত্রপ্রমীরাও চাইবেন ভালমানের ছবি বেড়ে গিয়ে হলে থাকুক চাঙ্গাভাব। আর এর জন্য নায়ক, নায়িকাদের পাশাপাশি নতুন বছরে চোখ থাকবে কিছু পরিচালকের নির্মাণের দিকেও। এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত ছবির খবরে নতুন বছরে কারা হতে পারেন ফ্যাক্টর তা নিয়ে লেখার চেষ্টা করেছি অন্তত পাঁচজনকে নিয়ে। প্রথম পর্বে থাকছে নায়কদের কথা।
শাকিব খান
মূল ভূমিকায় অভিনয় করা অনেক শিল্পীর ‘নায়ক’ শব্দটি নিয়ে আপত্তি থাকলেও হলে নিয়মিত যাওয়া দর্শকদের মাথায় যেকোন ছবির জন্য প্রথম আকর্ষণের জায়গা থাকে এই ‘নায়ক’ই। আর ঢাকাই ছবিতে এক নামে সে জায়গাটি ধরে রেখেছেন শাকিব খান।
২০১৮ শাকিব খানের জন্য খুব ভাল বছর তা বলা যাবে না। রোজার ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত সুপারহিরো, চিটাগাইংগা পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া বা এর আগে আমি নেতা হব বাদ দিলে বাকি ছবিগুলোর ব্যবসা খুব একটা ভালো যায়নি। মুক্তি জটিলতায় পিছিয়ে যাওয়া নাকাব, ভাইজান এলো রে আর চালবাজ আমদানির মাধ্যমে মোটামুটি ব্যবসা করেছে। তবুও অবধারিতভাবেই শাকিবই থাকবেন নতুন বছরের আলোচনায়। কারণ, বাস্তবতা এটাই তার নামেই হলে আসেন দর্শক। ইতিমধ্যে জুটি হিসেবে শাকিব-বুবলী পরিচালক ও দর্শকদের কাছে একটা আস্থার জায়গায় আছেন, তাই তাদের হাতে একসাথে করা ছবি আছে নতুন বছরেও। ‘আমার স্বপ্ন আমার দেশ’, হিমেল আশরাফের ‘প্রিয়তমা‘, শাহীন সুমনের ‘একটি প্রেম দরকার‘ ছবিতে ইতিমধ্যে এই জুটি কাজ করবেন বলে চূড়ান্ত করা হয়েছে, এতে আরো থাকছেন নবাগত মৃদুলা। এর মধ্যে শেষের দুটি ছবি আগামী ঈদে মুক্তির কথা বলা হচ্ছে। আসছে ভালবাসা দিবসে ববির বিপরীতে ‘নোলক’ ছবিতে দেখা যাবে শাকিবকে। এ ছাড়া প্রথমবারের মতো নুসরাত ফারিয়ার সাথে জুটি হয়ে ‘শাহেনশাহ’ ছবিতে দেখা যাবে তাঁকে, মডেল উপস্থাপিকা রোদেলা জান্নাতেরও অভিষেক হতে যাচ্ছে ছবিটির মাধ্যমে। শাপলা মিডিয়ার ব্যানারে ছবিটি পরিচালনা করছেন শামীম আহমেদ রনী। ‘মামলা হামলা ঝামেলা‘ নামে বিদ্যা সিনহা সাহা মীমের সঙ্গে একটি ছবিতে জুটি গড়তে দেখা যাবে শাকিবকে। উত্তম আকাশের পরিচালনায় ছবিটি চলতি বছর মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে। সম্ভাবনা আছে ‘কেউ কথা রাখে না‘ নামে আরেকটি ছবি মুক্তির। এই ছবিতে শাকিবের বিপরীতে দেখা যাবে মডেল ও অভিনেত্রী রাহা তানহা খানকে। ‘বীর’ চলচ্চিত্রে প্রথমবার একসঙ্গে কাজ করছেন কাজী হায়াৎ ও শাকিব খান। নায়িকা হিসেবে থাকছেন বুবলী।
এ ছাড়া এখনো নায়িকা চূড়ান্ত না হওয়া বেশ কয়েকটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন শাকিব। এর মধ্যে ‘স্বপ্নের বিদেশ’ ও ‘রিমোট কন্ট্রোল’ ছবি দুটি পরিচালনা করবেন উত্তম আকাশ। ওয়াজেদ আলী সুমনের পরিচালনায় ‘যুবরাজ’, নিরঞ্জন বিশ্বাসের পরিচালনায় তুমি বড় ভাগ্যবতী এবং সর্বশেষ ‘ইলিশের বাড়ি চাঁদপুর’ ছবির পরিচালকের নাম এখনো চূড়ান্ত হয়নি।

আরিফিন শুভ
শাকিবের পরেই এ বছর আলোচনায় থাকতে পারেন আরিফিন শুভ। ২০১৮ সালে তিনি ভক্তদের হতাশ করেন ‘ভালো থেকো‘ আর ‘একটি সিনেমার গল্প’ ছবি দিয়ে। যার গল্প ও নির্মাণ অনেককেই হতাশ করেছে। তবে ২০১৯ সালে আবারো শুভ ঘুরে দাঁড়াবেন এমনই প্রত্যাশা। নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুলের ‘জ্যাম’ ছবিটি ইতিমধ্যে শুটিং প্রায় শেষের পথে। এতে শুভ ছাড়াও ফেরদৌস, পূর্ণিমা রয়েছেন। দীর্ঘ ১০ বছর বন্ধ থাকার পর আবারও মান্নার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘কৃতাঞ্জলী’ সক্রিয় হয়েছে এই শুটিংয়ের মাধ্যমে। মান্নার স্ত্রী শেলী মান্না এখন এই প্রতিষ্ঠানটির হাল ধরেছেন। ‘জ্যাম’ শিরোনামে ছবিটির গল্প লিখেছেন প্রয়াত সাংবাদিক আহমদ জামান চৌধুরী। ছবিটি বছরের মাঝামাঝিতে মুক্তি পেতে পারে।
২০১৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ব্যবসাসফল সিনেমা ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর পর এবার নির্মিত হতে যাচ্ছে নতুন সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’। এ সিনেমাটিতেও অভিনয় করতে যাচ্ছেন আরিফিন শুভ। এতে তিনি পুলিশের স্পেশাল ফোর্সের একজন চৌকশ, পেশাদার এবং সাহসী পুলিশ অফিসারের চরিত্রে অভিনয় করবেন। প্রথমটির মতো দেশের দ্বিতীয় পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমাটির কাহিনী, চিত্রনাট্য এবং সংলাপ লিখেছেন সানী সানোয়ার। এটি পরিচালনা করতে দেখা যেতে পারে ফয়সাল আহমেদকে। তিনি ‘ঢাকা অ্যাটাক’ সিনেমায় প্রধান সহকারী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আগামী বছরের মার্চ থেকে সিনেমাটির শুটিং শুরু হবে। ছোট পর্দার নির্মাতা গোলাম সোহরাব দোদুল তার প্রথম সিনেমা ‘সাপলুডু’র শুটিং শেষ করেছেন, যেখানে কেন্দ্রীয় দুটি চরিত্রে দেখা যাবে চিত্রনায়ক আরিফিন শুভ ও চিত্রনায়িকা বিদ্যা সিনহা মীমকে, আছেন জাহিদ হাসান, তারিক আনামের মত গুনী শিল্পীরাও। ছবিটি মুক্তি পেতে পারে বছরের শেষভাগে। এ ছাড়াও কলকাতায় নির্মিত শুভ-ঋতুপর্ণা জুটির পরের ছবি ‘আহারে’ আসবে এ বছরেই।
সিয়াম
সিয়াম, এ সময়ের হালের ক্রেজ বলা-ই যায়। প্রথম দুই ছবি ‘পোড়ামন ২’ আর ‘দহন’এ বাজিমাত করে স্বাভাবিকভাবেই নতুন বছরেও আলোচনায় থাকবেন তিনি। তবে এ পর্যন্ত তৌকির আহমেদের ‘ফাগুন হাওয়া’ ছাড়া তার আর কোন ছবির মুক্তির কথা শোনা যায়নি। ভাষা আন্দোলন নিয়ে করা ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে ৮ ফেব্রুয়ারি ভাষার মাসেই। টিটো রহমানের ছোটগল্প ‘বউ কথা কও’ অবলম্বনে ছবিটির চিত্রনাট্য করেছেন তৌকীর আহমেদ নিজেই। ছবিটির প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা ও সিয়াম আহমেদ। এতে বলিউডের অভিনেতা যশপাল শর্মাও গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন। জাজ মাল্টিমিডিয়ার ব্যানারে নাম ঠিক না হওয়া আরেকটি ছবিতে পূজা ও রোশানের সাথে আরেকটি ছবির শুটিং শুরু হবে মার্চ মাসে। আলোচিত পরিচালক রায়হান রাফির তৃতীয় এই ছবিটি হবে আন্ডার ওয়ার্ল্ড নিয়ে। তেমনই শোনা যাচ্ছে। এদিকে ‘ঢাকা অ্যাটাক’ খ্যাত দীপঙ্কর দীপনের একটি ছবিতে অভিনয়ের কথা শোনা যাচ্ছে সিয়ামের। একাধিক সংবাদমাধ্যম জানায়, সিনেমাটির নাম ‘বিট কয়েন স্ক্যাম’।

বাপ্পী
২০১৮ সালে বাপ্পীর বেশকিছু ছবি মুক্তি পেলেও বক্স অফিসে ঝড় তুলতে পারেনি কোনটাই। তবে আসছে বছরেও বাপ্পীর রয়েছে মুক্তি প্রতিক্ষিত ও নির্মিতব্য কিছু ছবি। পাগলামী, ডেঞ্জারজোন ছবি মুক্তির মিছিলে আছে, আছে সম্প্রতি বিনা কর্তনে সেন্সর ছাড়পত্র পাওয়া ‘দাগ হৃদয়ের’ নামের ছবিটিও। বাপ্পীর বিপরীতে এতে আছেন বিদ্যা সিনহা মিম। ছবিতে বাপ্পি-মিমের বাইরে আঁচলও অভিনয় করেছেন। মুক্তির তালিকায় আছে ‘ডনগিরি’, পরিচালনা করছেন শাহ আলম মণ্ডল। এতে আরও আছেন শক্তিমান অভিনেতা আনিসুর রহমান মিলন, থাকছেন নবাগতা এমিয়া এমি। চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের সাথে ‘কানাগলি’ ও ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ ২’ ছবিতে জুটি বেঁধেছেন বাপ্পী। এ ছাড়াও শোনা যাচ্ছে, বাপ্পী ও অপু বিশ্বাসের চুক্তিবদ্ধ হওয়া আরো একটি ছবির কথা, নাম ‘জানবাজ’। ইমপ্রেস টেলিফিল্মের প্রযোজনায় ছবিটির পরিচালনা করতে যাচ্ছেন রবিন খান। আর নতুন করে ‘প্রেমের বাঁধন’ ছবিতে অভিনয় করছেন বাপ্পী ও মাহি। পরিচালক গাজী জাহাঙ্গীর।

তাহসান
তাহসানকে আগামী নতুন বছরের আলোচনায় রাখতেই হচ্ছে। ছোটপর্দায় তাঁর জনপ্রিয়তা বড় পর্দায় তাঁর অভিষেক কতটা রাঙাতে পারে তা দেখার অপেক্ষায় সবাই। মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ‘যদি একদিন’ ছবিতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন গায়ক-নায়ক তাহসান। তার বিপরীতে থাকছেন ওপার বাংলার শ্রাবন্তী, আছেন তাসকিনসহ একঝাক গুণী অভিনয়শিল্পী। তাহসানকে দেখা যাবে ফয়সাল চরিত্রে। ছবিটি এ বছর ভালবাসা দিবসে মুক্তি পেতে পারে।

এ ছাড়া আলোচনায় আরো থাকতে পারেন রোশান, সাইমন, এবিএম সুমন, জায়েদ খানের মতো অনেকে।