৯৪তম অস্কার আসরে সবকিছু ছাপিয়ে আলোচনায় ছিল মার্কিন কমেডিয়ান ক্রিস রককে হলিউড অভিনেতা উইল স্মিথের চড়। এত বড় অনুষ্ঠানে এমন কাণ্ড ঘটায় মাশুল দিতে হবে উইল স্মিথকে এ সবার জানা। কিন্তু একাডেমি কর্তৃপক্ষ কতটুকু শাস্তি দেবে তা ছিল সবার অজানা।

ক্রিস রককে চড় মারার কারণে আগেই ক্ষমা চেয়েছিলেন হলিউড অভিনেতা উইল স্মিথ। এ ঘটনার জেরে গত শুক্রবার একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস থেকে ইতিমধ্যে পদত্যাগ করেছেন এই অভিনেতা।

পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, শাস্তি প্রসঙ্গে কর্তৃপক্ষের যেকোনো সিদ্ধান্ত মেনে নেবেন তিনি।

গত শুক্রবার একটি বিবৃতিতে উইল স্মিথ বলেন,

‘৯৪তম অস্কার পুরস্কার অনুষ্ঠানে আমার আচরণ ছিল একেবারেই মর্মান্তিক, বেদনাবিধুর ও অমার্জনীয়। যাঁদের আমি আহত করেছি, তাঁদের তালিকা অনেক বড়। যাঁদের মধ্যে আছেন ক্রিস, তাঁর পরিবার, আমাদের অনেক বন্ধু ও ভালোবাসার মানুষ। অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া প্রতিটি মানুষ এবং বিশ্বের অসংখ্য দর্শক। অন্যান্য যাঁরা নিজেদের অসাধারণ কাজের জন্য মনোনীত হয়েছেন এবং বিজয়ী হয়েছেন, তাঁদের আনন্দ করার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করেছি।’

বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, ‘আমি অত্যন্ত দুঃখিত। আমি চাই, একাডেমি নিজের মতো করে এগিয়ে যাক। চলচ্চিত্রজগৎ আরও সমৃদ্ধ হোক। আমি প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, ভবিষ্যতে এমন অপরাধমূলক কাজ থেকে নিজেকে দূরে রাখব।’

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Will Smith (@willsmith)


যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সাময়িকী ফোর্বস বলছে, উইল স্মিথ পদত্যাগ করলেও তাঁর অস্কার পুরস্কার বাতিল করা হবে না। এ ছাড়া আগামী অস্কার আসরগুলোতে তিনি মনোনয়ন পাবেন, অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণও পাবেন। কিন্তু অস্কারের কোনো আয়োজনে ভোট দিতে পারবেন না।

একাডেমির প্রেসিডেন্ট ডেভিড রুবিন বলেন, ‘স্মিথের পদত্যাগপত্র গৃহীত হয়েছে। আমাদের পরের বোর্ড সভা ১৮ এপ্রিল। তার আগে আমরা একাডেমির আচরণের শৃঙ্খলাভঙ্গের জন্য স্মিথের বিরুদ্ধে যে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া শুরু করেছি, তা অব্যাহত থাকবে।’

গত রোববার রাতে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসের ডলবি থিয়েটারে অস্কার আসর বসে। সেখানে উপস্থাপক ক্রিস রক স্মিথের স্ত্রী জেডা পিঙ্কেট স্মিথের ন্যাড়া মাথা নিয়ে ঠাট্টা করেছিলেন। অ্যালোপেসিয়া রোগে পিঙ্কেটের চুল ঝরে যায়।

বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি স্মিথ। রককে কষে চড় দেন অভিনেতা উইল স্মিথ। তবে চড় দেওয়ার পরে দুঃখ প্রকাশ করেছেন এই অভিনেতা।


বোস্টনে একটি স্ট্যান্ড-আপ কমেডি অনুষ্ঠানে ক্রিস রক বলেছেন, তাঁকে চড় দেওয়ার জন্য উইল স্মিথের বিরুদ্ধে মামলা করবেন না তিনি। তবে সেদিন যা ঘটেছে, তার রেশ এখনো কাটেনি।

তবে এই ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রসহ সারা বিশ্বে দুই ভাগে বিভক্ত হয়েছে মানুষ। কেউ উইল স্মিথের পক্ষে তো কেউ ক্রিস রকের পক্ষে।

উইল স্মিথের স্ত্রী জেডা পিঙ্কেট স্মিথকে নিয়ে এবারই প্রথম কৌতুক করলেন ক্রিস রক এমনটি নয়। এর আগেও ২০১৬ সালের অস্কারের মঞ্চে স্মিথ দম্পতি অনুপস্থিত ছিলেন। তখনো রক তাঁদের নিয়ে কৌতুক করেন। ওই কমেডিয়ান বলেছিলেন, ‘জেডা পাগল হয়ে গেছে। কারণ, তাঁর স্বামী উইল কনকাশন–এর জন্য মনোনয়ন পাননি।’

সে বছর কোনো কৃষ্ণাঙ্গ অভিনয়শিল্পী অস্কারে মনোনয়ন পাননি। তখন অনলাইনে হ্যাশট্যাগ অস্কারসোহোয়াইট আন্দোলনের প্রতি সমর্থন জানিয়ে অনুপস্থিত ছিলেন স্মিথ দম্পতি।

১৯৯০ সালে ক্রিস রক অতিথি শিল্পী হিসেবে উইল স্মিথের শো ‘দ্য ফ্রেশ প্রিন্স অব বেল-এয়ার’-এ অংশ নিয়েছিলেন। আর তখন থেকেই পরিচিত উইল স্মিথ ও ক্রিস রক।

এ ছাড়াও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্রিস রক নানা বিরূপ মন্তব্য করে সমালোচিত হন। ২০১৮ সালে উইল স্মিথ ইন্সটাগ্রামে তাঁর সাবেক স্ত্রী শেরি জ্যাম্পিনোকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন। ওই পোস্টের নিচে রক মন্তব্য করেছিলেন, ‘ও! আপনার দেখি একটি খুবই সহনশীল স্ত্রী (জেডা) আছে।’

এই মন্তব্যের নিচে শেরি জ্যাম্পিনো জবাব দিয়েছিলেন, ‘ঘৃণা ছড়াবেন না।’