• স্যালুটে দুলকারের সঙ্গে পর্দা ভাগাভাগি করেছেন ডায়ানা পেন্টি।
  • ককটেল (২০১২) দিয়ে পরিচিতি পান ডায়ানা।
  • স্যালুট দিয়ে ডায়ানার মালায়ালাম সিনেমায় অভিষেক হবে।

দুলকার সালমানকে সবশেষ পুলিশের চরিত্রে দেখা গিয়েছিল বিক্রমাদিত্যন সিনেমায়। এক ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে হতাশ যুবক বাবার মৃত্যুর পর পণ করেছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা হবেন। হয়েছিলেনও সিনেমার শেষ ভাগে। এবার দুলকারকে আবার পুলিশ কর্মকর্তার চরিত্রে দেখা যাবে স্যালুট-এ।

এরই মধ্যে চার্লিখ্যাত এই দক্ষিণী তারকা টুইটার, ইনস্টাগ্রামে ঘোষণা দিয়েছেন বহুল প্রতিক্ষীত স্যালুট আসছে আগামী ১৮ মার্চ। পোস্টারের পর প্রকাশ হয়েছে ট্রেলার। তা দেখে দর্শকেরা হয়তো এরই মধ্যে জেনে গেছেন, সিনেমার পুরোটা জুড়ে কোনো এক কেস সমাধানে ব্যস্ত পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে দেখা যাবে দুলকারকে।

ক্রাইম থ্রিলার যাদের পছন্দ সেসব দর্শকেরাও হয়তো একটু নড়েচড়ে বসেছেন স্যালুট এর পোস্টার ও ট্রেলার দেখে। এ ধাঁচের সিনেমায় দুলকারকে এর আগে দেখা গেছে সেকেন্ড শো  (২০১২) আর কুরুপে (২০২১)। সেকেন্ড শো ছিল দুলকারের প্রথম সিনেমা।

২০১২ সালের সেই দুলকার এখন বেশ পরিণত। দক্ষিণ ভারতীয় রোমান্টিক-ড্রামার জন্য খ্যাত এই অভিনেতাকে চরিত্র থেকে বের হয়ে আসতে খুব কমই দেখা গেছে। কুরুপে ছিলেন ব্যতিক্রম। এবার স্যালুটে পুলিশ কর্মকর্তার চরিত্রের জন্য নিজেকে কতটা ঢেলে সাজিয়েছেন সেটাই দেখার বিষয়।

তবে সম্প্রতি স্যালুটে নিজের চরিত্র সম্পর্কে একটু ধারণা দিয়েছেন দুলকার। ইনস্টাগ্রামে পোস্টার শেয়ার করে লিখেছেন, সিনেমায় তাঁর নাম পুলিশ কর্মকর্তা অরবিন্দ করুণাকরণ। যিনি সমাজে ছড়িয়ে থাকা অসাধু লোকেদের ধরতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ এবং একটা কেসের তলানিতে না যাওয়া পর্যন্ত হাল ছাড়তে রাজি না।

দুলকার লিখেছেন, ‘একজন জেদী অফিসার। এমন একটি মামলা যা অমীমাংসিত বলে মনে হয়।’ অর্থ্যাৎ স্যালুটে এবার অমীমাংসিত কেস সমাধানে নামছেন দুলকার।

স্যালুটে দুলকারের সঙ্গে পর্দা ভাগাভাগি করেছেন ককটেল (২০১২) দিয়ে পরিচিতি পাওয়া ডায়ানা পেন্টি। স্যালুট দিয়ে মালায়ালাম সিনেমায় অভিষেক হবে ডায়ানার। এ ছাড়া, গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে আরও আছেন মনোজ কে জয়ান, লক্ষ্মী গোপালস্বামী, সানিয়া আইয়াপ্পান, বিনু পাপ্পু ও সাইকুমার।

সিনেমাটির ট্রেলার প্রকাশ করেছে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম সনি লিভ। ১৮ মার্চ এই প্ল্যাটফর্মেই মুক্তি পাবে সিনেমাটি।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ট্রেলার শেয়ার করে দুলকার লিখেছেন, সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন রোশান অ্যান্ডুস। গল্প লিখেছেন ববি ও সঞ্জয়। দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর সিনেমাটি মুক্তি দিতে পেরে তারা আনন্দিত।

এর আগে প্রেক্ষাগৃহে সিনেমাটি মুক্তির দিনক্ষণ ঠিক হয়েছিল ১৪ জানুয়ারি। কিন্তু করোনাভাইরাসের নতুন ধরন অমিক্রন ছড়িয়ে পড়ায় তা আর হয়নি।

আরও পড়ুন: ক্রিকেটার হয়ে ফিরছেন আনুশকা